প্রফেসর ডা. আবুল কাশেম চৌধুরী মৃত

0
46
views

দেশের মাইক্রোবায়োলজির অন্যতম পথিকৃৎ প্রফেসর ডা. আবুল কাশেম চৌধুরী আর নেই। শুক্রবার ভোর ৬টায় বিএসএমএমইউর কেবিন ব্লকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে, আত্মীয়-স্বজনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।তার স্ত্রী বর্তমানে ড. নার্গিস আখতার বিএসএমএমইউর ডারমাটোলজি ডিপার্টমেন্টের প্রফেসর পদে কর্মরত।

প্রফেসর ড. আবুল কাশেম চৌধুরী কর্মজীবনে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল ইউনিভারসিটির মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্টের প্রফেসর ছিলেন। সর্বশেষ তিনি রাজধানীর মগবাজারে অবস্থিত কমিউনিটি মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্টের বিভাগীয় প্রধান ছিলেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তিনি খুব মৃদুভাষী ছিলেন। মানুষকে তিনি আপ্যায়ন করতে খুব পছন্দ করতেন। আত্মীয়-অনাত্মীয়, কেউ না কেউ পাশে না থাকলে সব সময় মনমরা হয়ে থাকতেন। এছাড়াও তিনি ঘটকালি করতে বিশেষ পছন্দ করতেন। তিনি বলতেন, মানুষে মানুষে মিলন ঘটানোর চেয়ে আনন্দের কিছু নেই।

শুক্রবার বাদ জুমা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল ইউনিভার্সিটি মসজিদের সামনে অনুষ্ঠিত হয়। আর বাদ আসর দ্বিতীয় জানাযা অনুষ্ঠিত হবে পান্থপথ মসজিদের সামনে।

চিকিৎসক মহলে শোকের ছায়া: অধ্যাপক ডা. আবুল কাশেম চৌধুরীর মৃত্যুতে চিকিৎসক মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। তিনি এক শোক বিবৃতিতে অধ্যাপক ডা. মো. আবুল কাশেম চৌধুরীর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

বিএসএমএমইউতে নামাজে জানাজা শেষে আবুল কাশেম চৌধুরীর কফিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার পক্ষে পুষ্পস্তবক অপর্ণের মাধ্যমে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএসএমএমইউর মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এ বিএম আব্দুল হান্নান, সাবেক রেজিস্ট্রার ও বর্তমানে ফার্মাকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. সায়েদুর রহমান, মাইক্রোবায়েলজি অ্যান্ড ইমিউনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আহমেদ আবু সালেহ, এ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আব্দুল্লাহ আল হারুন প্রমুখ।