ভয়ঙ্কর ক্যান্সারের যে লক্ষণগুলো আপনি নাও বুঝতে পারেন

0
325
views

ক্যান্সার বর্তমানে যেন মহামারি আকার ধারণ করেছে। আর এ অবস্থায় ক্যান্সারের কিছু লক্ষণ জেনে রাখা উচিত সবারই। ক্যান্সার দ্রুত নির্ণয় করতে পারলে তা সহজে নিরাময় করা যায়। এ ধরনের কোনো লক্ষণ যদি আপনার ক্ষেত্রে দেখা দেয় তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করুন।
১. হঠাৎ ওজন হ্রাস
কোনো কারণে হঠাৎ দেহের ওজন কমে যাওয়া মোটেই স্বাভাবিক বিষয় নয়। এটি হতে পারে ক্যান্সারসহ বিভিন্ন মারাত্মক রোগের লক্ষণ। আপনার যদি হঠাৎ ১০ পাউন্ড বা তার বেশি ওজন কমে যায় তাহলে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এটি প্যানক্রিয়াস, পাকস্থলি, অন্ননালী কিংবা ফুসফুসের ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে। অনেক সময় টিউমারের কারণে সামান্য খাবার খেলেই পরিপূর্ণতার অনুভূতি হয়। ফলে খাওয়া কমে যায় এবং হঠাৎ দেহের ওজনও হ্রাস পায়।
২. কোষ্ঠকাঠিন্য
আপনার যদি কোষ্টকাঠিন্য সমস্যা থাকে এবং তা কোনোভাবে ভালো না হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ কোষ্টকাঠিন্য হতে পারে ক্যান্সারের লক্ষণ। বিশেষত কোলন ক্যান্সার হলে অনেকেই কোষ্টকাঠিন্য সমস্যায় আক্রান্ত হন। সঠিক সময়ে এ ক্যান্সার চিকিৎসা করানো সম্ভব হলে ৯০ শতাংশ ক্ষেত্রেই রোগী ভালো হয়ে যায়।
৩. অযাচিত পিণ্ড
দেহের কোথাও যদি অযাচিত পিণ্ড দেখা যায় তাহলে সাবধান। এটি হতে পারে মারাত্মক ক্যান্সারের লক্ষণ। বুকে কিংবা দেহের কোনো সংবেদনশীল অংশে এ লক্ষণ দেখা যেতে পারে।
৪. পেটে সমস্যা
পেটে নানা ধরনের সমস্যা হতে পারে। তবে প্রত্যেক সমস্যারই একটি নির্দিষ্ট কারণ রয়েছে। এক্ষেত্রে আপনার পেটে যদি এমন কোনো ব্যথা দেখা যায়, যে ব্যথার কোনো কারণ জানা যাচ্ছে না, তাহলে সাবধান। এ ধরনের ব্যথা হতে পারে আপনার ক্যান্সারের লক্ষণ। ব্যথার পাশাপাশি হতে পারে পেট ফুলে যাওয়া ও দেহের ওজন বৃদ্ধি।
৫. ব্যথা
সব ব্যথা ক্যান্সারের লক্ষণ নয়। তবে কিছু ব্যথা রয়েছে, যা কোনো স্থানে একেবারে স্থীর হয়ে থাকে। এ ধরনের ব্যথা হতে পারে বোন ক্যান্সার কিংবা টেস্টিকুলার ক্যান্সারের লক্ষণ। একইভাবে মাথা ব্যথা হতে পারে ব্রেন টিউমারের লক্ষণ।   এছাড়া ব্যাক পেইন হতে পারে কোলন ক্যান্সার কিংবা ওভারিয়ান ক্যান্সারের লক্ষণ।
৬. মুখের সমস্যা
মুখের অভ্যন্তরে কিংবা জিহ্বায় দীর্ঘদিন ধরে একই অবস্থায় রয়েছে এমন কোনো ধরনের ক্ষত হতে পারে ক্যান্সারের লক্ষণ। এ লক্ষণ হতে পারে দীর্ঘস্থায়ী টনসিলও। এছাড়া কোনো কারণ ছাড়া কণ্ঠ যদি পরিবর্তিত হয় তাহলেও ক্যান্সারের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাবে না।