যশোরে হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি

0
177
views

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল থেকে একদিনের ছেলে শিশু চুরি হয়েছে।রোববার সকালে লেবার ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

যশোর সদর উপজেলার রূপদিয়া বাজার এলাকার সাইফুল ইসলামের স্ত্রী রূপালী বেগম (২৩) শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ওই শিশু প্রসব করেন।

হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ডে কান্নাজড়িত কণ্ঠে রূপালী বেগম জানান, সকালে লেবার ওয়ার্ডে তার শাশুড়ি সখিনা বেগমের কোলে শিশুটি ছিল। এসময় অজ্ঞাতপরিচয়ে এক নারী এসে তাদের বলেন, তার কোনো সন্তান নেই। বাচ্চাটিকে তিনি একটু কোলে নিতে চান।

এরপর সখিনা বেগমের কাছ থেকে কৌশলে বাচ্চাটি কোলে নিয়ে ওই নারী সটকে পড়েন।

রূপলী বেগম আরও বলেন, তিনি তার শাশুড়িকে নিষেধ করে বলেছিলেন, এভাবে হাসপাতাল থেকে বাচ্চা চুরি হয়। কিন্তু তারপরও তার শিশুটি চুরি হয়ে গেছে।

এ সময় হাসপাতালে থাকা যশোর প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ কাজী আশরাফুল আজাদ জানান, তিনি পৌনে ১১টার দিকে হাসপাতালে প্রবেশের সময় বোরকা পরিহিতা এক নারীকে ছোট্ট এক বাচ্চাকে নিয়ে যেতে দেখেন।

তখন মনে প্রশ্ন জেগেছিল, ওই নারী এত ছোট বাচ্চাকে নিয়ে কোথায় যাচ্ছেন? এর আধঘণ্টা পরে শিশু চুরির খবর পেয়ে তিনি লেবার ওয়ার্ডে যান। তার ধারণা, বোরকা পরা ওই নারীই শিশুটিকে নিয়ে চলে গেছে।

হাসপাতালের ওই ওয়ার্ডের কর্তব্যরত চিকিৎসক রবিউল ইসলাম জানান, ওয়ার্ড থেকে শিশু চুরির অভিযোগ পেয়েছেন। এখন সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পরীক্ষা করে তারা এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবেন।

যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সুকুমার রায় জানান, শিশু চুরির ঘটনায় সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে। আটক মমতাজ পারভীন শহরের মোল্লাপাড়া এলাকার সাখাওয়াত হোসেনের স্ত্রী মমতাজ পারভীন। তিনি ওই ওয়ার্ডে ঘোরাঘুরি করছিলেন।

তবে আটক মমতাজ দাবি করেন, তিনি তার স্বামীর চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে এসেছিলেন। শিশুটির মা ও দাদি কান্নাকাটি করছিল দেখে তিনি বাইরে খোঁজাখুঁজির পরামর্শ দেন। তিনি আর কিছুই জানেন না।

চুরি হওয়া নবজাতকের মা রূপালী বেগম অভিযোগ করেছেন, বাচ্চা চুরির ঘটনায় যারা জড়িত তাদের সঙ্গে হাসপাতালের নার্সদের যোগাযোগ আছে। নার্সদের মাধ্যমে খবর পেয়ে ওই নারী তার সন্তানকে চুরি করে নিয়ে গেছে।