রোগীদের নানা দুর্ভোগ সাতক্ষীরায় হাসপাতাল বিদ্যুত বন্ধে

0
180
views

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে এক সপ্তাহ ধরে বিদ্যুতের কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েন রোগীরা। অস্ত্রোপচারসহ বিভিন্ন চিকিৎসাসেবা বন্ধ হয়ে যায়। এসময় জেলার দূর-দূরান্ত থেকে আসা রোগীরা হাসপাতালের দুরবস্থা দেখে ফিরে যান। অসহনীয় গরমে সবচেয়ে দুর্ভোগে পড়েন প্রসূতি মা ও নবজাতকরা।

এদিকে হাসপাতলে বিদ্যুতের পাশাপাশি পানি না থাকায় পরিবেশ দূষণ দেখা দেয়। বাইরে থেকে পানি এনে রোগীদের প্রয়োজনীয় কাজ সারতে হয়।

চিকিৎসাধীন শেফালি খাতুনের স্বামী মহব্বত আলী সাংবাদিকদের বলেন, ‘তিন দিন আগে গর্ভবতী স্ত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করাই। তখন কর্তৃপক্ষ বলে, হাসপাতালে বিদ্যুৎ নেই। তোমার স্ত্রীকে যদি অস্ত্রোপচার করতে হয় তাহলে জেনারেটরে তেল কিনে দিতে হবে। আমি তেল কিনে দিলে চিকিৎসকরা আমার স্ত্রীর অস্ত্রোপচার করেন।’

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন অফিসে টেলিফোন করে জানতে চাইলে সেখানে কর্মরত জুনিয়রস্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার শাহীনুর খাতুন মেডিভয়েসকেবলেন, বিদ্যুতের কারণে রোগীদের নানা সমস্যা হয়েছিল। এখন তা (হাসপাতালের ট্রান্সফরমার) ঠিক করা হয়েছে। এখন হাসপাতালে বিদ্যুত আছে।

সাতক্ষীরার সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, এক সপ্তাহ আগে সদর হাসপাতালের ট্রান্সফরমার নষ্ট হয়ে যায়। এখানে একটি ১৫০ কেভি পাওয়ারের ট্রান্সফরমার প্রয়োজন। কিন্তু বিদ্যুৎ অফিসে বারবার বলা হলেও তারা ৫০ কেভির বেশি ট্রান্সফরমার দিতে পারছে না। এ বিষয়ে খুলনা স্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তরে চিঠি পাঠানো হয়।

হাসপাতালে বিদ্যুতবিহীন অবস্থায় হাসপাতালে ২৫০-৩০০ রোগী ভর্তি ছিল। বিদ্যুত না থাকায় হাসপাতালে অস্ত্রোপচার সাময়িকভাবে বন্ধ ছিল। ভোগান্তির কারণে অস্ত্রোপচারের রোগীদের অনেকেই ফিরে গিয়েছেন।