৩ লাখ ৯৫ হাজার শিশুর জন্ম বছরের প্রথম দিনে

0
44
views

নতুন বছরের প্রথম দিনে গোটা বিশ্বে ৩ লাখ ৯৫ হাজার ৭২ শিশু এবং বাংলাদেশে ৮ হাজার ৪২৮ শিশু জন্মগ্রহণ করেছে। মঙ্গলবার জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ এক বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানিয়েছে।

ইউনিসেফের তথ্যে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের প্রথম শিশুটি জন্মাবে দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশ ফিজিতে আর শেষ শিশুটি জন্মাবে যুক্তরাষ্ট্রে। বছরের প্রথম দিনে ভারতে সর্বোচ্চ সংখ্যক জন্মগ্রহণ করেছে। তারপরই রয়েছে চীন, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, কঙ্গো এবং বাংলাদেশ অর্থাৎ এ আটটি দেশ। তবে এই সংখ্যার চার এক-চতুর্থাংশই জন্মেছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে।

ইউনিসেফের দেয়া তথ্যমতে, নতুন বছরের প্রথম দিনে ভারতে ৬৯ হাজার ৯৪৪, চীনে ৪৪ হাজার ৯৪০, নাইজেরিয়ায় ২৫ হাজার ৬৮৫, পাকিস্তানে ১৫ হাজার ১১২, ইন্দোনেশিয়ায় ১৩ হাজার ২৫৬, যুক্তরাষ্ট্রে ১১ হাজার ৮৬, কঙ্গোতে ১০ হাজার ৫৩ এবং বাংলাদেশে ৮ হাজার ৪২৮ শিশু জন্মগ্রহণ করেছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘ঠিক যখনই ঘড়ির কাটা মাঝরাতে পৌছাবে তখনই অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে ১৬৮, জাপানের টোকিওতে ৩১০, চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে ৬০৫, স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে ১৬৬ ও নিউ ইয়র্কে ৩১৭ শিশুর জন্ম হবে।

জানা যায়, ২০১৭ সালে বছরের প্রথম দিনে জন্ম নেয়া ১০ লাখ শিশুর মৃত্যু হয়েছিল। আর জন্ম নেয়ার ঠিক এক মাসের মধ্যে আরও ২৫ লাখ শিশুর মৃত্যু হয়। এসব শিশুর মধ্যে অধিকাংশের মৃত্যু হয়েছিল নিরাময়যোগ্য নানান রোগে। যেমন- জন্মের আগে ভোগা রোগ, প্রসবকালীন জটিলতা, নিউমোনিয়া ও অন্যান্য রোগ। আর এর মাধ্যমে তারা তাদের বেঁচে থাকার অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

ইউনিসেফের সহকারী নির্বাহী পরিচালক ক্যারলোটে পেত্রি গর্নিৎজকা বলেন, ‘এবার নতুন বছরের প্রথম দিনে আমাদের সবার অঙ্গিকার করতে হবে, যেন প্রত্যেকটা শিশু তার অধিকার থেকে বঞ্চিত না হয়। আর সেটার শুরু হোক শিশুটির বেঁচে থাকার অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে।’

তিনি আরও বলেন, আমরা লাখ লাখ শিশুকে বাঁচাতে পারি যদি স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশিক্ষণ এবং প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সরবরাহের পেছনে বিনিয়োগ করা সম্ভব হয়।