ইউরোপ জুড়ে করোনার আতঙ্কের মধ্যে সুখবর দিলেন চিকিৎসকেরা। লন্ডনে সদ্যোজাত এক শিশুর শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শিশুটি এখন বিপদমুক্ত। বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর এ বিষয়ে নিশ্চিত করে জানান চিকিৎসকরা। তবে আপাতত ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে দুধের এ শিশুকে। এরপরই হাসপাতাল থেকে ছুটি দেয়া হবে তাকে।নর্থ মিডলসেক্স হাসপাতালে সদ্য এ শিশুটির জন্ম দেন এক তরুণী। জন্মের পরই চিকিৎসকরা দেখেন সদ্যোজাতের শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। তার শরীরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সব উপসর্গও ধীরে ধীরে লক্ষ্য করেন চিকিৎসকরা। তড়িঘড়ি রক্ত পরীক্ষা করা হয়। তাতে ধরা পড়ে সদ্যোজাত সিওভিডি ১৯ পজিটিভ অর্থাৎ সে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত।

বিশ্বে প্রথমবার লন্ডনের এ সদ্যোজাতর শরীরে মেলে করোনা ভাইরাস। এরপরই আলাদা আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে তার চিকিৎসা শুরু হয়। তবে বর্তমানে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ওই সদ্যোজাত সম্পূর্ণ বিপদমুক্ত। তার শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা এখনও জারি রয়েছে। আপাতত ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হবে একরত্তিকে। আপাতত শিশুর মাকেও আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি রাখা হয়েছে।

এর আগে কেরলেও তিন বছরের শিশুর শরীরে মিলেছিল মরণঘাতীয় চীনা ভাইরাসের জীবাণু।

কিন্তু প্রশ্ন একটাই মাতৃগর্ভে থাকাকালীন কীভাবে ভাইরাস তার শরীরে বাসা বাঁধল? যদিও এ বিষয়ে কোনো সুস্পষ্ট তথ্য নেই চিকিৎসকদের কাছে। নর্থ মিডলসেক্স হাসপাতালের চিকিৎসকদের অনেকেই মনে করছেন, শিশুটির মা ভাইরাস আক্রান্ত ছিলেন। তাই গর্ভে থাকাকালীন শিশুর শরীরেও তা সংক্রামিত হয়েছিল। আবার কেউ কেউ বলছেন, প্রসবের প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই ভাইরাস তার শরীরে থাবা বসিয়েছে। এই ঘটনার পর থেকে শিশু এবং বৃদ্ধদের সাবধানে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।