জ্বর ও শ্বাসকষ্টে কাউন্সিলর প্রার্থীর মৃত্যু

কয়েকদিন ধরে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৩৭ নম্বর মুনির নগর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী হোসেন মুরাদ (৫০)। করোনা সন্দেহে পরীক্ষার জন্য তিনদিন আগে নমুনাও দিয়েছিলেন। কিন্তু রিপোর্ট আসার আগেই বুধবার সকালে মারা গেলেন আওয়ামী লীগের এই নেতা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ মান্নান। তিনি বলেন, হোসেন মুরাদ মৃত্যুর আগে মঙ্গলবার রাতে ফোন করে আমাকে হতাশ হয়ে বলেছিলেন, মান্নান জ্বরও ন পরের, রিপোর্টও ন পাইর (জ্বরও কমছে না, রিপোর্টও পাচ্ছি না।

এম এ মান্নান জানান, মুরাদ ভাইয়ের ভাড়া বাসার এক বাসিন্দার করোনা শনাক্ত হওয়ায় তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে তিনদিন আগে তার শরীরের নমুনাও সংগ্রহ করা হয়েছিল। কিন্তু তার রিপোর্ট আসেনি।

গত দুই দিন তার মারাত্মক জ্বর ছিল। বুধবার সকাল থেকে তার শ্বাসকষ্টও বেড়ে যায়। একপর্যায়ে সকাল ৮টার দিকে মুন্সিপাড়ার নিজ বাসভবনে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

হোসেন মুরাদ চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনিত কাউন্সিলর প্রার্থী ছিলেন। এছাড়া তিনি ওই ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এম এ মান্নান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, করোনা আক্রান্ত কি না হোসেন মুরাদ মৃত্যুর আগে না জানলেও জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের টিম তার লাশ দাফন প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

ROOT

%d bloggers like this: