ডায়ালিসিসের অপেক্ষা আর শেষ হয় না — ভালো থাকুন

ডায়ালিসিসের অপেক্ষা আর শেষ হয় না

খুলনার শেখ আবদুর রশিদ কিডনি রোগে আক্রান্ত। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস অ্যান্ড ইউরোলজিতে (নিকডু) ডায়ালিসিসের সিরিয়াল পেতে গত বছরের ১৬ নভেম্বর তিনি আবেদন করেন। ওই আবেদনপত্রে স্থানীয় এমপি জাহাঙ্গীর কবির নানক এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবু তাহের খানের সুপারিশ রয়েছে। এরপর সাড়ে তিন মাস কেটে গেলেও এখনও তার ভাগ্যে সিরিয়াল মেলেনি। চিকিৎসাসেবা পেতে বর্তমানে তিনি রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানার ৫৮ নম্বর গণি রোডে বসবাস করছেন।

 

শেখ আবদুর রশিদের মতো নিকডুতে এ পর্যন্ত ৫৫৬ রোগী কিডনি ডায়ালিসিসের সুযোগ চেয়ে আবেদন করেছেন। কিন্তু পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) আওতায় হাসপাতালে যে ১৪টি মেশিনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে, তাতে মাত্র ১১৫ রোগী ডায়ালিসিসের সুযোগ পাচ্ছেন। ৪০০ টাকায় ডায়ালিসিস করার সুবিধা পাওয়ার কারণে রোগীর উপচেপড়া ভিড় কিডনি হাসপাতালে। প্রতি ডায়ালিসিসে সরকার ভর্তুকি দেয় ১ হাজার ৭৯০ টাকা। ফলে আক্রান্তরা মন্ত্রী, এমপিসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রভাবশালীদের সুপারিশ নিয়ে ডায়ালিসিসের সিরিয়াল পেতে আবেদন করছেন। প্রতিদিন গড়ে অর্ধশত রোগী আবেদন করলেও সক্ষমতার অতিরিক্ত হওয়ায় কর্তৃপক্ষ তা গ্রহণ করতে পারছে না। হাসপাতালটিতে শয্যা আছে মাত্র দেড়শ’। অথচ ভর্তিচ্ছু রোগীর সংখ্যা অনেকগুণ বেশি। আউটডোরেও গড়ে প্রতিদিন ২৫০ থেকে ৩০০ রোগী চিকিৎসা নেন। লজিস্টিক সাপোর্টের তুলনায় রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে পারছে না প্রতিষ্ঠানটি।

শেখ আবদুর রশিদ বলেন, বেসরকারি ক্লিনিকে প্রত্যেকবার ডায়ালিসিসের জন্য খরচ হয় ৩ হাজার টাকা। এ হিসাবে মাসে তার খরচ ৩৬ হাজার টাকা। কয়েক বছর ধরে ব্যয়বহুল এই চিকিৎসাসেবা নিতে গিয়ে তিনি নিঃস্ব হয়ে পড়ছেন। কিডনি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. হারুন অর রশিদ বলেন, দেশে কিডনি

রোগীর মধ্যে মাত্র ১৫ ভাগ ডায়ালিসিস করার সুযোগ পান। আক্রান্ত অবশিষ্ট জনগোষ্ঠী অর্থাভাবে ডায়ালিসিস করাতে পারেন না। মোট ৯৬টি ডায়ালিসিস সেন্টারে মাত্র ১৮ হাজার রোগী প্রতি সপ্তাহে এই সেবা পান। ডায়ালিসিস খরচ কমাতে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে সমন্বিত উদ্যোগ প্রয়োজন। তাহলে দরিদ্র মানুষ সেবা পাবেন।

নিকডুর পরিচালক অধ্যাপক ডা. নুরুল হুদা লেলিন বলেন, হাসপাতালে যে পরিমাণ লজিস্টিক সাপোর্ট আছে, তাতে তারা ৫০ রোগীর মধ্যে মাত্র একজনের ডায়ালিসিস এবং ভর্তি হতে আসা ১০ রোগীর মধ্যে মাত্র একজন ভর্তি করতে পারছেন। এতে বেশিরভাগ রোগীই চিকিৎসাসেবার বাইরে থেকে যাচ্ছে। যন্ত্রপাতির পাশাপাশি শয্যা সংখ্যা না বাড়ালে রোগীর সেবা নিশ্চিত করা সম্ভব নয় বলে জানান তিনি।

এ পরিস্থিতির মধ্যে আজ বৃহস্পতিবার পালিত হচ্ছে বিশ্ব কিডনি দিবস। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছে ‘স্থূলতা কিডনি রোগ বাড়ায়, সুস্থ জীবনযাপনে সুস্থ কিডনি’। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

নতুন চালু হওয়া ডায়ালিসিস কেন্দ্রটি নিয়েও অভিযোগ :কিডনি রোগে আক্রান্তদের স্বল্পমূল্যে ডায়ালিসিস সুবিধা দিতে গত বছরের ৩০ নভেম্বর থেকে নিকডুতে প্রকল্পের আওতায় চালু হওয়া কেন্দ্রটি নিয়েও এরই মধ্যে অভিযোগ উঠেছে। এই কেন্দ্রে ডায়ালিসিস করে অনেক রোগী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। রোগীদের অভিযোগ, একই ডায়ালাইজার দিয়ে ১৫ থেকে ২০ বার করে তাদের কিডনি ডায়ালিসিস করা হয়েছে। এতে তারা অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। হাসপাতালের পরিচালকের কাছে তারা এ বিষয়ে অভিযোগ করলে তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করেছে। পরিচালক অধ্যাপক ডা. নুরুল হুদা লেলিন এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ডা. কাজী শাহনূর রহমান বলেন, ডায়ালাইজারের গায়ে ডিসপোজেবল লেখা আছে। রোগীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে, সেগুলো বারবার ব্যবহার করা হয়েছে। এতে রোগীরা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সদস্য ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবদুর রশিদ  বলেন, তদন্ত প্রতিবেদন তৈরির বিষয়টি চূড়ান্ত পর্যায়ে। শিগগিরই প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

কেন ডায়ালিসিস প্রয়োজন :ডায়ালিসিসের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে জানতে চাইলে নিকডুর নেফ্রোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. বাবরুল আলম বলেন, ডায়ালিসিস রক্ত পরিষ্কার করার একটি বিকল্প পদ্ধতি। যার মাধ্যমে রক্তের দূষিত ও ক্ষতিকর পদার্থ প্রস্রাব আকারে বের করে দেওয়া হয়। মূলত কিডনি রোগীর রক্ত পরিশোধনের জন্য ডায়ালিসিস করতে হয়। রক্তে বর্জ্য পদার্থের পরিমাণ বেড়ে গেলে রোগী ধীরে ধীরে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এক সময় মৃত্যুবরণ করে। তাই কিডনির অসুখ হলে ডায়ালিসিস অপরিহার্য হয়ে পড়ে। ডায়ালিসিস করা না গেলে রোগীর শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। শরীরে পানি জমে, ইনফেকশনসহ বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দেয়।

ডায়ালিসিস সেন্টার ও চিকিৎসা সংকট : সারাদেশে কিডনি রোগীর চিকিৎসার পাশাপাশি ডায়ালিসিস সেন্টারের স্বল্পতা রয়েছে। চিত্রটা এমন, জেলা পর্যায়ে চিকিৎসা নেই। অথচ দেশে দুই কোটিরও বেশি মানুষ কিডনি রোগে আক্রান্ত। দেশের বড় বড় হাসপাতালে এ রোগের চিকিৎসার জন্য পৃথক ইউনিট নেই। দেশে মাত্র ৮০ থেকে ৯০ জন কিডনি বিশেষজ্ঞ রয়েছেন। পুরনো আটটি মেডিকেল কলেজের অনেকগুলোতে ডায়ালিসিস সেন্টার নেই। নিকডু ছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, কুর্মিটোলা, মুগদা, গোপালগঞ্জ, কুমিল্লা, সিলেট, চট্টগ্রাম, দিনাজপুর, রংপুর, খুলনা আবু নাসের, সিরাজগঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ডায়ালিসিস সেন্টার চালু আছে। বরিশালে চালুর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ডায়ালিসিস সেন্টারে রোগীদের প্রতিবার সাড়ে তিন থেকে পাঁচ হাজার টাকা খরচ হয়। দরিদ্র মানুষের পক্ষে যা করানো অসম্ভব।

কিডনি অ্যাওয়ারনেস মনিটরিং অ্যান্ড প্রিভেনশন সোসাইটির (ক্যাম্পস) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সামাদ বলেন, তার প্রতিষ্ঠান থেকে কিডনি রোগ নিয়ে চালানো গবেষণায় দেখা গেছে, দেশে প্রায় দুই কোটি মানুষ কোনো না কোনোভাবে কিডনি রোগে আক্রান্ত। প্রতি বছর প্রায় ৪০ হাজার রোগী কিডনি বিকল হয়ে মারা যাচ্ছেন। শতকরা ৫ ভাগ মানুষেরও দীর্ঘমেয়াদি ব্যয়বহুল এ চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়ার সামর্থ্য নেই। ৭৫ ভাগ রোগী কিডনি রোগে আক্রান্ত হওয়ার পরও বুঝতে পারেন না তিনি ঘাতকব্যাধিতে আক্রান্ত।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, কিডনি রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে পিপিপির আওতায় নিকডু এবং চট্টগ্রামে মেডিকেল কলেজে নতুন ডায়ালিসিস সেন্টার চালু করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সারাদেশের সরকারি হাসপাতালে ডায়ালিসিস কেন্দ্র স্থাপন করা হবে।

আইনের খসড়া চূড়ান্ত :গত কয়েক বছর ধরে কিডনি নিয়ে সিন্ডিকেট বাণিজ্যের কারণে কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট প্রায় বন্ধ রয়েছে। অসাধু ব্যবসা বন্ধে জেল-জরিমানার বিধান রেখে মানবদেহে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন আইন সংশোধন করেছে সরকার। সংশোধিত আইনে ১৮ বছরের কম বয়সের কেউ অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ দান করতে পারবেন না। তবে রি-জেনারেটিভ টিস্যুর ক্ষেত্রে দাতা-গ্রহীতা ভাইবোন হলে তারা এর আওতায় পড়বে না। অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ প্রতিস্থাপন অপতৎপরতার সঙ্গে কেউ জড়িত প্রমাণ পাওয়া গেলে সর্বোচ্চ সাত বছরের জেলা এবং ৫ লাখ টাকার জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা যাবে। খসড়া আইনে মৃত ব্যক্তির অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ দানের বিধান রাখা হয়েছে। আইন অমান্য করে কোনো চিকিৎসক এবং হাসপাতাল বা ক্লিনিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ প্রতিস্থাপন করলে তাদের নিবন্ধন ও সনদ বাতিল করা হবে। এ ছাড়া ক্রিমিনাল প্রসিডিউর কোড অনুসারে বেআইনিভাবে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজনের সঙ্গে সম্পৃক্তকারীর বিচার করা হবে। তবে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন আইনে আত্মীয় ছাড়া অন্য কারও কিডনি নেওয়া যাবে না_ এমন ধারা অতি প্রয়োজনে শিথিল করার সুযোগ রাখার পরামর্শ দিয়েছেন অনেকেই।

কর্মসূচি :দিবসটি উপলক্ষে আজ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। রেনাল অ্যাসোসিয়েশন, কিডনি ফাউন্ডেশন ও ক্যাম্পস যৌথভাবে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

ROOT

করোনার ৩ নতুন উপসর্গ হচ্ছে সর্দি, বমিভাব আর ডায়রিয়া

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থা (সিডিসি) করোনাভা্রাসের নতুন তিনটি উপসর্গ চিহিৃত করেছে। নতুন ৩ উপসর্গ হচ্ছে সর্দি, বমিভাব আর ...
Read More

করোনায় শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আসাদুজ্জামানের মৃত্যু

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মহাখালীর জাতীয় ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আসাদুজ্জামান মারা গেছেন। ...
Read More

করোনা উপসর্গ নিয়ে যুবকের মৃত্যু

গাজীপুরের শ্রীপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে ফিরোজ আল-মামুন (৪০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। ফিরোজ উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের মাওনা গ্রামের মৃত ...
Read More

অতিরিক্ত অর্থে মিলছে অক্সিজেন

রাজশাহীতে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। আর এর চাইতেও বেশি আছে করোনা উপসর্গ নিয়ে নতুন রোগীর সংখ্যা। এ ধরনের ...
Read More

উপসর্গে ওসমানী মেডিকেলের অধ্যাপক ডা. গোপাল শংকরের মৃত্যু

সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মানসিক রোগ বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. গোপাল শংকর দে করোনাভাইরাসের ...
Read More

চীনের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল হতে পারে বাংলাদেশে

করোনাভাইরাস নির্মূলে চীন আবিষ্কৃত সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। ...
Read More

ক‌রোনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের উপদেষ্টার মৃত্যু

করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের চেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট উপদেষ্টা আল্লাহ মালিক কাজেমী মারা গেছেন। শুক্রবার (২৬ জুন) বিকেলে এভার কেয়ার ...
Read More

রাজশাহীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে দু’জনের মৃত্যু,

প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজশাহীতে মারা গেছেন একজন। আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে করোনার উপসর্গ নিয়ে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে রাজশাহী মেডিকেল ...
Read More

করোনায় মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যানের মৃত্যু

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বেসরকারি মার্কেন্টাইল ব্যাংকের উদ্যোক্তা পরিচালক ও ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি ...
Read More
%d bloggers like this: