সীতাকুণ্ডে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে তরুণীর মৃত্যু

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত এক তরুণী (২৮) গত বুধবার মারা গেছেন। একই দিন তাঁর ভাবিরও জ্বর ও কাশি শুরু হয়। এতে ভয় পেয়ে পরিবারের সদস্যরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে ওই তরুণীর ভাবির নমুনা সংগ্রহের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে বিষয়টি জানায়। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যায় স্বাস্থ্য বিভাগ।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নুর উদ্দিন রাশেদ গতকাল রাতে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ‘মারা যাওয়া ওই তরুণীর যে লক্ষণ ছিল, তার ভাবিরও একই লক্ষণ দেখা দিয়েছে। তাই তাঁকে সাসপেক্টেড ধরে নিয়ে তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।পরিবারটির বরাত দিয়ে স্থানীয় কুমিরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্য প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক দিন ওই তরুণী জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় বুধবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে ওই তরুণী মারা যান। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে মৃত ঘোষণা করে।

ওই ইউপি সদস্য আরও বলেন, ওই তরুণীর পরিবারের কেউ বিদেশ থেকে আসেননি। আতঙ্কে থাকায় তরুণীর ভাবির নমুনা সংগ্রহের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে অনুরোধ করেছেন তিনি। গতকাল বিকেলে অ্যাম্বুলেন্স পাঠিয়ে ওই তরুণীর ভাবির নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিল্টন রায় প্রথম আলোকে বলেন, মারা যাওয়া ওই তরুণীর নমুনা সংগ্রহ করা ছাড়াও আরও একজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তাঁদের নমুনা পরীক্ষার জন্য সীতাকুণ্ডে অবস্থিত বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে আজ শুক্রবার পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া যাবে। প্রতিবেদনে মারা যাওয়া ওই তরুণীর ভাবির করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ এলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

ROOT

%d bloggers like this: