হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারির — ভালো থাকুন

হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারির

আধুনিক প্লাস্টিক সার্জারি এখন এ সমস্যার এক নিরাপদ, প্রাকৃতিক ও স্থায়ী সমাধান দিচ্ছে। এটা করা হয় হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারির মাধ্যমে। এ চিকিৎসায় রোগীদের মাথার পেছন থেকে চুল নিয়ে টাক জায়গায় প্রতিস্থাপন করা হয়। আধা ইঞ্চি ত্বকের স্ট্রিপ নিয়ে তৈরি করা হয় হাজার Mini ও Micrografts এ grafts টাকের ছোট ছিদ্রতে প্রতিস্থাপন করা হয় ।

হেয়ার উইভিং ও হেয়ার ট্রান্সপ্লান্টের পার্থক্য কী?

হেয়ার উইভিং- এটা অনেকটা পরচুলার মতো ব্যাপার। এ ক্ষেত্রে মাথার যেই অংশে টাক পড়েছে সেখানে কৃত্রিম বা সিন্থেটিক চুল ক্লিপ বা চুল সেট করার অন্য কোনও অ্যাক্সেসরি দিয়ে বসিয়ে দেওয়া হয়।

হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট- হেয়ার ট্রান্সপ্লান্টে সম্পূর্ণ ন্যাচারাল চুল ব্যবহার করা হয়। এই পদ্ধতিতে সম্পূর্ণ ন্যাচরাল চুল টাক পড়ে যাওয়া অংশে প্রতিস্থাপন করা হয়। এই চুল স্বাভাবিক ভাবে বাড়বে, পড়ে যেতে পারে, কাটা যাবে, নিয়মিত তেল, শ্যাম্পু, কন্ডিশনার লাগিয়ে চুলের যত্ন নিতে হবে।

সুবিধা-অসুবিধা

দু’টো পদ্ধতিরই কিছু সুবিধা যেমন আছে, কিছু অসুবিধাও আছে।

হেয়ার উইভিং-

১। এই পদ্ধতির জন্য চিকিত্সকের প্রয়োজন নেই।

২। যন্ত্রনা কম

৩। সহজে করা যায়।

৪। খরচ কম

৫। চুল বাড়বে না বা পড়ে যাবে না

৬। দেখতে ন্যাচরাল না লাগলেও চুল ঘন লাগবে

হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট-

১। অভিজ্ঞ চিকিত্সকের প্রয়োজন

২। যন্ত্রনাদায়ক তাই অ্যানাসথেশিয়ার প্রয়োজন হয়

৩। সহজে করা যায় না। অন্তত দুই থেকে তিনটি সিটিংয়ের পরই চিকিত্সক প্রতিস্থাপনের সিদ্ধান্ত নেন।

৪। চুল বাড়বে, কাটা যাবে, পড়বে।

৫। দেখতে ন্যাচরাল লাগলেও প্রথমে বেশি ঘন হবে না। পরে নতুন চুল গজিয়ে ঘন দেখাতে পারে। তবে তা নির্ভর করছে আপনার চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধির ওপর।

৬। খরচ বেশি।

হেলদি ডোনার এরিয়া’ বিষয়টি আসলে কী?

উত্তর : আমাদের মাথার চুল সাধারণত দুভাগে ভাগ করা হয়। একটি হচ্ছে, মাথার প্রথম দিকে অস্থায়ী অংশ (টেম্পোরারি জোন) এবং মাথার পেছনের দিকে চিরস্থায়ী অংশ (পারমানেন্ট জোন)। যখন আমরা চুল প্রতিস্থাপন করি তখন চিরস্থায়ী অংশ থেকে চুল নিয়ে প্রতিস্থাপন করি। চিরস্থায়ী অংশে চুল থাকতে হবে এবং ঘনত্ব (ডেনসিটি) থাকতে হবে। হালকা ঘনত্ব করা যায়। কিন্তু এটা নির্ভর করবে কতখানি আমরা পূরণ করতে চাচ্ছি তার ওপর। তাই যদি ডোনার এরিয়ায় চুল থাকে পাশাপাশি ঘনত্ব থাকে, আমরা সফলভাবে যেকোনো জায়গায় চুল লাগিয়ে দিতে পারব।

এই সার্জারিটি যখন আপনি করেন, তখন রোগীর কোন কোন বিষয়টি মাথায় রাখেন?

উত্তর : সাধারণত কোনো কিছুই খেয়াল রাখতে হবে না। রোগী স্বাস্থ্যবান হলেই করা যাবে। আমরা এটি ডায়াবেটিসের রোগীদের ক্ষেত্রে করছি, হাইপারটেনশিভ রোগীদের ক্ষেত্রেও করছি। এমনকি হৃদরোগের রোগীদেরও এই প্রতিস্থাপন করা হচ্ছে। কারণ এটা লোকাল অ্যানেসথেসিয়া দিয়ে করা হয়। আমরা শুধু মাথার খুলি (স্কাল্প) অবশ করে কাজ করছি। ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশিভ,  হৃদরোগ এগুলো যদি নিয়ন্ত্রণে থাকে, তাহলে আমাদের কোনো সমস্যা হয় না। সহজেই সার্জারিটা করতে পারি।

সার্জারি করার পর রোগীর প্রতি আপনাদের কী কী ধরনের পরামর্শ থাকে?

উত্তর : রোগীকে আমরা বলে দিই এটি একটি পরিপূর্ণ সার্জারি। এখানে কেটে কাজ করা হবে। সার্জারির জটিলতা যা হয়, এখানেও এটি হতে পারে। তবে সাধারণত কোনো জটিলতা হয় না। কিন্তু তারপরও আমরা রোগীকে প্রস্তুত করি বিষয়টি সম্বন্ধে। সাধারণত ফলোআপের জন্য তেমন কিছু লাগে না। রোগী যখন চুল প্রতিস্থাপন করে গেল, যেদিন করবে তার পাঁচ-ছয় ঘণ্টা সময় লাগবে কারণ এটি অনেক সূক্ষ্ম একটি সার্জারি।

হেয়ার ট্রান্সপ্লানটেশন বলতে মাথার পেছনে বা সাইড থেকে চুলসহ চামড়া কেটে এনে সেলাই করতে হয় আবার মাথার পেছন থেকে ও সাইড থেকে একটি করে চুল গোড়াসহ এনে টাক জায়গায় স্কিন ফুটো করে ঢুকিয়ে দিতে হয়।

বর্তমানে দুটি পদ্ধতির মাধ্যমে হেয়ার ট্রান্সপ্লানটেশন করা হয়। একটি হলো FUT বা Follicular Unit Transection, যার মাধ্যমে মাথার পেছন ও সাইড থেকে চুলসহ চামড়া কেটে এনে সেলাই করতে হয়।
অপরটি হলো FUE (Follicular Unit Extraction). এ পদ্ধতিতে মাথার পেছন ও সাইড থেকে একটি করে চুল গোড়াসহ এনে টাক জায়গায় স্কিন ফুটো করে ঢুকিয়ে দিতে হয়।
প্রশ্ন থাকে, একজন রোগী কোন পদ্ধতি ব্যবহার করবেন। তাই এ পদ্ধতির চিকিৎসা সম্পর্কে ধারণা থাকা জরুরি। অনেকেই মাথার চুল পড়লে বা মাথায় টাক থাকলে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। কী করবেন ভেবে পান না। সোজা কথা হলো, এ সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়া উচিত। রোগী যদি মনে করেন তাহলে হেয়ার ট্রান্সপ্লানটেশনের দুইটি পদ্ধতি সম্পর্কে বিশদ ধারণা থাকা জরুরি।

পদ্ধতি-১: FUT (Follicular Unit Transection) পদ্ধতিতে মাথার পেছন থেকে চুলসহ স্কিন কেটে এনে সেলাই করা হয়, যা শুকাতে ১০ দিন সময় লাগে। তবে মাথায় চুল কামাতে হবে না।
এ পদ্ধতিতে ৪ ঘণ্টায় ২ হাজার চুল লাগানো যায়। এ পদ্ধতি সূক্ষ্ম। কারণ অণুবীক্ষণ যন্ত্রের নিচে চুল আলাদা করা হয়। এ পদ্ধতিটি ব্যয়বহুল নয়। একজন ডাক্তার ইচ্ছে করলে এক দিনে ৬ হাজার পর্যন্ত চুল লাগাতে পারেন। সেলাই করতে হয় বলে বেশি ব্যথা ও দাগ থাকে। তবে বড় জায়গায় ট্রান্সপ্লানটেশনের জন্য এ পদ্ধতিটি খুবই উপযোগী।

পদ্ধতি-২: FUE (Follicular Unit Extraction) পদ্ধতির মাধ্যমে মাথার পেছন থেকে একটি করে চুল তুলে আনা হয় ও প্রতিস্থাপন করা হয়, যা শুকাতে দুই থেকে তিন দিন লাগে। ধীর পদ্ধতিতে চুল লাগাতে হয় বা ১০ ঘণ্টায় ২ হাজার চুল লাগানো সম্ভব। এ পদ্ধতিতে একদিনে সর্বোচ্চ ২ হাজার চুল লাগানো সম্ভব। তবে এ পদ্ধতিটি ব্যয়বহুল। সেলাই করতে খুব অল্প ব্যথা এবং কোনো দাগ থাকে না। ছোট এরিয়ার ট্রান্সপ্লানটেশনের জন্য এ পদ্ধতি সহায়ক।

ROOT

করোনার ৩ নতুন উপসর্গ হচ্ছে সর্দি, বমিভাব আর ডায়রিয়া

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থা (সিডিসি) করোনাভা্রাসের নতুন তিনটি উপসর্গ চিহিৃত করেছে। নতুন ৩ উপসর্গ হচ্ছে সর্দি, বমিভাব আর ...
Read More

করোনায় শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আসাদুজ্জামানের মৃত্যু

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মহাখালীর জাতীয় ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আসাদুজ্জামান মারা গেছেন। ...
Read More

করোনা উপসর্গ নিয়ে যুবকের মৃত্যু

গাজীপুরের শ্রীপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে ফিরোজ আল-মামুন (৪০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। ফিরোজ উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের মাওনা গ্রামের মৃত ...
Read More

অতিরিক্ত অর্থে মিলছে অক্সিজেন

রাজশাহীতে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। আর এর চাইতেও বেশি আছে করোনা উপসর্গ নিয়ে নতুন রোগীর সংখ্যা। এ ধরনের ...
Read More

উপসর্গে ওসমানী মেডিকেলের অধ্যাপক ডা. গোপাল শংকরের মৃত্যু

সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মানসিক রোগ বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. গোপাল শংকর দে করোনাভাইরাসের ...
Read More

চীনের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল হতে পারে বাংলাদেশে

করোনাভাইরাস নির্মূলে চীন আবিষ্কৃত সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। ...
Read More

ক‌রোনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের উপদেষ্টার মৃত্যু

করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের চেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট উপদেষ্টা আল্লাহ মালিক কাজেমী মারা গেছেন। শুক্রবার (২৬ জুন) বিকেলে এভার কেয়ার ...
Read More

রাজশাহীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে দু’জনের মৃত্যু,

প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজশাহীতে মারা গেছেন একজন। আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে করোনার উপসর্গ নিয়ে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে রাজশাহী মেডিকেল ...
Read More

করোনায় মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যানের মৃত্যু

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বেসরকারি মার্কেন্টাইল ব্যাংকের উদ্যোক্তা পরিচালক ও ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি ...
Read More
%d bloggers like this: